বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন এ তালিকাভুক্ত আইডি নং – ৪২৯ ............................ দেশ ও জাতীর কল্যাণে সংবাদ ও সাংবাদিকতা!! আপনি কি সাংবাদিক হয়ে দেশ ও জাতীর কল্যাণে কাজ করতে চান তা হলে যোগাযোগ করুন ০১৭২৬৩০৪০৯২
প্রচ্ছদ

মেলান্দহ বাসীর চাওয়া,বদরুদ্দোজা পিএফকে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে পাওয়া

ইসলামপুর অফিসঃ আসন্ন মেলান্দহ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে সম্ভাব্য একাধিক প্রার্থী লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। সম্ভাব্য এসব প্রার্থীরা ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টারসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজেদের প্রার্থীতার কথা জানান দিচ্ছেন।

একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী থাকলেও তরণ প্রজন্ম মেলান্দহ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক বদরুদ্দোজা পিএফকে। জানা গেছে, মেলান্দহ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের একাধিক নেতা চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীক পেতে দলের নীতি নির্ধারকদের কাছে যাচ্ছেন। তুলে ধরছেন নিজ নিজ যোগ্যতা।

কে পাচ্ছেন আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক তা নিয়ে চলছে উপজেলার সর্বত্র আলোচনা। নানা মহলের আলোচনায় শীর্ষে অবস্থান করছেন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান গরীবের বন্ধু হিসেবে পরিচিত বদরুদ্দোজা পিএফ। বদরুদ্দোজা পিএফ বর্তমানে জামালপুর জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক।

মেলান্দহের তরুণ প্রজন্ম মনে করেন আসন্ন নির্বাচনে তরুণদের প্রাধান্য দেওয়া হবে। তরুণ নেতার হাতেই তুলে দেওয়া হবে উন্নয়নের প্রতীক নৌকা। স্কুল জীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন বদরুদ্দোজা পিএফ। আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের প্রতিটি কর্মকান্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। ছাত্র রাজনীতির শুরুতে মেলান্দহ উপজেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেন।

আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মেলান্দহ উপজেলা শাখার সিনিয়র যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন নিষ্ঠার সাথে। জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়ে পুরো জেলায় পরিচিতি লাভ করেন। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া বাংলাদেশ তাঁতী লীগ জামালপুর জেলা শাখার আহবায়ক হন। তরুণ এই নেতার নেতৃত্বে পুরো জেলায় তাঁতী লীগ শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। যুদ্ধাপরাধী বিচারের দাবিতে প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে প্রথম কাতারেই ছিলেন পিএফ।

জামালপুরের উন্নয়নের কর্ণধার সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজমের ¯েœহভাজন গরীবের বন্ধু হিসেবে পরিচিত দক্ষ সংগঠক বদরুদ্দোজা পিএফ নিজেকে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষণা করায় হারাম হয়েছে অনেকের ঘুম। মেলান্দহ যুব সমাজের স্বচ্ছ ও আদর্শবান নেতা বদরুদ্দোজা পিএফকেই চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দেবেন দলের নীতি নির্ধারকরা।

৩৭ বছর বয়সের এই নেতার ভৌগলিক অবস্থান উপজেলার অন্য সকল নেতার চাইতে সু-বিস্তর। পশ্চিমে মাদারগঞ্জ উপজেলার বালিজুড়ি মির্জা পরিবারের সাথে রক্তের সম্পর্ক রয়েছে। হাজরাবাড়িতে পিতার জন্মস্থান, মায়ের জন্মস্থান উপজেলার দুরমুঠ মিয়াবাড়ি। নিজের বসতবাড়ি মেলান্দহ রেল স্টেশন এলাকার জালালপুরে। শেষ পর্যন্ত তরুণ জনপ্রিয় নেতা বদরুদ্দোজা পিএফকেই দলীয় মনোনয়ন দেবেন এমন প্রত্যাশা মেলান্দহ উপজেলার সর্বস্তরের ভোটারদের।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*