বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন এ তালিকাভুক্ত আইডি নং – ৪২৯ ............................ দেশ ও জাতীর কল্যাণে সংবাদ ও সাংবাদিকতা!! আপনি কি সাংবাদিক হয়ে দেশ ও জাতীর কল্যাণে কাজ করতে চান তা হলে যোগাযোগ করুন ০১৭২৬৩০৪০৯২
প্রচ্ছদ

মাদারগঞ্জে খানাখন্দে ভরা বালিজুড়ী-ভাটারা সড়ক

জামালপুরের মাদারগঞ্জের বালিজুড়ী-ভাটারা সড়কে প্রায় ২১ কিলোমিটার পিচ,ইট,পাথর উঠে খানাখন্দ ও বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে এসব খানাখন্দে। খোয়া বালু দিয়ে সামায়িক ভাবে মেরামত করা গর্তগুলো আবারও ফিরে গেছে পুরানো চেহারায়। প্রথম দেখায় সড়ক না পুকুর তা নির্ধারন করা কঠিন হয়ে পড়ে। খানাখন্দে ভরপুর এই সড়ক দিয়েই ঝুকি নিয়ে চলছে বাস ট্রাক ও বিভিন্ন যানবাহন। এতে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে পরিবহন মালিক, স্টাফ, যাত্রি ও উপজেলার বিপুলসংখ্যক সাধারণ মানুষ। দীর্ঘ দিনেও সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় পায়ে হেটে চলাচলও কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

সরেজমিন দেখা যায়, বালিজুড়ী-ভাটার সড়কের ২১ কিলোমিটারের অধিকাংশই বড়বড় খানাখন্দে ভরা। সড়কের ৪টি এলাকায় বাজার গড়ে উঠেছে। এ সব বাজার মূল সড়কের চেয়ে এক দেড় ফুট উচু। ওই সব এলাকায় পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টি এলেই পানি জমে সড়কের উপর। এ ছাড়াও সড়কের দুই পাশে গড়ে উঠেছে হাজারও ঘড় বাড়ি। ওই সব বাড়ি থেকে পানি এসেও জমছে মূল সড়কে। এতে সড়কের পিচ খোয়া উঠে সৃষ্টি হয়েছে ছোটবড় গর্তের। পিচ ঢালাই উঠে যাওয়ায় এবং গর্তগুলো বড় হওয়ায় বৃষ্টির পানি আটকে বড় ধরনের জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে প্রতিনিয়ত দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ।

ট্রাক চালক আলিম উদ্দিন সিজে নিউজ বিডি.কমকে জানান, দীর্ঘ দিন যাবত এ সড়কের বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হলেও সংস্কারের কোন ধরনের উদ্দ্যোগ নেওয়া হয়নি। ফলে চালকরা সব সময় ঝুকির মধ্যে গাড়ি চালিয়ে আসছেন। বৃষ্টির সময় গর্তগুলো বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে থাকে। এতে করে গাড়ি উল্টে অনেক দুর্ঘটনা ঘটলেও সড়ক সংস্কারের উদ্ধোগ নেওয়া হয়নি। দ্রুত সময়ের মধ্যে এই সড়ক সংস্কারের দাবিও জানান তিনি।

সিধুলি ইউনিয়নের হাটবাড়ি গ্রামের ভ্যান চালক সামিউল ইসলাম সিজে নিউজ বিডি.কমকেজানান, প্রতিদিন তাদের ওই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। সড়কের অধিকাংশই খানাখন্দ থাকার কারনে যাত্রি ও ভারি মালামাল নিয়ে অত্যন্ত ঝুকি নিয়ে ভ্যান চালাতে হচ্ছে। আর হাজির বাড়ির মোড়ে প্রায় দিন গাড়ি উল্টে দূর্ঘটনা ঘটছে।

হাজির বাড়ির মোড়ে এই প্রতিবেদকও তথ্য সংগ্রহে গিয়ে মোটর সাইকেল গর্তে পড়ে দুর্ঘটানার শিকার হন।

আদার ভিটার ইউনিয়নের মোকছেদ,মোজাম্মেল, করিম গুনারীতলা ইউনিয়নের লুলূ মিয়া, বুলবুল মিয়া সহ বেশ কয়েকজন সিজে নিউজ বিডি.কমকে জানান, সড়ক জুরে সৃষ্টি হয়েছে ছোটবড় শতশত খানাখন্দের। বৃষ্টির পানি জমে থাকায় প্রায়ই দুর্ঘটার শিকার হচ্ছেন সাধারন মানুষ। বাসসহ ভারি মালামাল বাহি যানবাহন চলে হেলেদুলে। ছোটবড় গর্ত দিয়ে ভারি যানবাহন চলতে গিয়ে গর্তে পড়ে প্রায় বিকল হয়ে যাচ্ছে। একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা জানান, এমনিতেই এসব সড়ক জুরে খানাখন্দকে ভরপুর। তার ওপর সামান্য বৃষ্টিতেই দেখা দিচ্ছে জলাবদ্ধতা। এসব নোংরা পানি মাড়িয়ে প্রতিষ্ঠানে যাওয়া আসার সময় অবর্ণনীয় দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে।

ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ওমর ফারুক সিজে নিউজ বিডি.কমকে জানান, এই সড়ক দিয়ে চলাচল করা খুবই কঠিন হয়ে দাড়িয়েছে। বৃষ্টি এলে তো চলাই যায়না। বৃষ্টির পানিতে ভর্তি হয়ে যাওয়া এই গর্তগুলোর গভীরতা গাড়ির চালকরা বুঝতে পারছেন না। চাকা গর্তে পড়ে বাস, ট্রাক,নসিমন, ভটভটি ও কাভার্ট ভ্যান কাত হয়ে যায় এবং অনেক সময় উল্টে দুর্ঘটনার শিকার হয়।

উপজেলা প্রকৌশলি (এলজিইডি) মোঃ মনির উজ্জামান জানান, সড়কটি সংস্কারের জন্য এলজিইডির সদর দপ্তরে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। এখন অনুমোদনের অপেক্ষায়। অনুমোদনের পরেই সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*