বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন এ তালিকাভুক্ত আইডি নং – ৪২৯ ............................ দেশ ও জাতীর কল্যাণে সংবাদ ও সাংবাদিকতা!! আপনি কি সাংবাদিক হয়ে দেশ ও জাতীর কল্যাণে কাজ করতে চান তা হলে যোগাযোগ করুন ০১৭২৬৩০৪০৯২
প্রচ্ছদ

“উদ্ভাবকের খোঁজে” জামালপুরের তরুন বিজ্ঞানী তৌহিদুল ইসলাম প্রথম

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে গণ প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নতুন বাংলাদেশ গড়ার রূপকার জননেত্রী “শেখ হাসিনা” র নির্দেশে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে “উদ্ভাবকের খোঁজে” কর্মসূচীতে জামালপুরের কৃতি সন্তান তরুন বিজ্ঞানী “মো: তৌহিদুল ইসলাম তাপস” পরিত্যাক্ত পলিথিন ও প্লাষ্টিক সামগ্রী থেকে পেট্রোল, ডিজেল,কেরোসিন,এলপি গ্যাস ও ছাপার কালি তৈরীর যন্ত্র আবিষ্কার করে সেরা দশের মধ্যে প্রথম হয়েছেন।

জানা যায়,জামালপুর সদর উপজেলার কুঁচগড় ( মঙ্গলপুর) গ্রামে তৌহিদুলের জন্ম। বাবা আলহাজ মাওলানা আব্দুল মান্নান। মা মোছা: হালিমা খাতুন। প্রাথমিক শিক্ষা গ্রামের কুঁচগড় নবরত্ন সরকারি স্কুলে। এসএসসি নারিকেলি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে। শহীদ জিয়াউর রহমান কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে এইচএসসি পাশ করেন। তারপর সিভিল ইন্জিনিয়ারিং এ ডিপ্লোমা করেন।

বাগান করা এবং গবেষণা করা তার হবি । তাঁর ছোট্ট গবেষণাগারে কয়েক’শ প্রাণীর মমি আছে। যা শত বছর স্থায়ী হবে। তাছাড়া মশা তাড়ানো ও মশা মারার যন্ত্রও আবিষ্কার করেছেন তিনি। তৌহিদুলের আরও একটি বিশেষ আবিষ্কার তা হলো ” সুপার সিকিউরিটি কলিং বেল “। যা ছ’জন নিরাপত্তাকর্মীর কাজ করবে।

পলিথিন ও প্লাস্টিক পরিবেশ উন্নয়নের জন্য হুমকি-এ ধারনার খোল নলচে বদলে দিয়েছেন তৌহিদুল। এ সমস্যাকে তিনি পরিনত করেছেন সম্পদে। তাঁর উদ্ভাবিত যন্ত্রের মাধ্যমে প্রকারভেদে পাওয়া যাবে ৪৫-৮৭% জ্বালানী তেল। কার্বন থেকে পাওয়া যাবে ছাপার কালি। অথচ কার্বন ডাই অক্সাইড বা কার্বন মনোক্সাইড তৈরী হবে না।

সবচেয়ে অবিশ্বাস হলেও সত্য হল – এক কিলোগ্রাম পলিথিন বা প্লাস্টিক দ্রব্য প্রক্রিয়াজাতকরণে খরচ হবে মাত্র ০.৭০-২.০০ টাকা জানিয়েছেন তৌহিদুল।

তৌহিদুলের প্রকল্পটি হল – “পরিত্যাক্ত পলিথিন ও প্লাস্টিক হতে জ্বালানী তেল ও ছাপার কালি প্রস্তুত”। অত্যন্ত আনন্দের বিষয় এই, সরকারি সহযোগিতায় প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে। জামালপুর শহরের নতুন বাইপাসের পাশেই ওর কারখানা স্থাপনের কাজ প্রায় শেষ। আশা করা যায় খুব শীঘ্রই এখানে উৎপাদনের কাজ শুরু হবে।

পরিত্যাক্ত পলিথিন ও প্লাস্টিক কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার করা একদিকে যেমন পরিবেশ ভয়াবহ দূষণ হতে রক্ষা পাবে। অন্যদিকে অত্যন্ত কম খরচে (প্রতি লিটার পেট্রোল ৩০/- টাকা) জ্বালানী তেল উৎপাদন আমাদের দেশের অর্থনীতিতে অত্যন্ত অগুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*